কাল্টুদার কলিংবেল

কাল্টুদা নতুন কলিংবেল লাগিয়েছে।

যে সময়ের কথা বলছি, সে সময় সবার বাড়িতে কলিংবেল থাকত না। বড়লোকেরা শখ করে লাগাতো। কাল্টুদাও শখে একটা জোগাড় করেছে। সন্ধের সময় বাড়ি ফিরে যেন দরজা ধাক্কাতে না হয়। বেশ টিং-টং করে বাজবে।

মুশকিলটা হলো পাড়ার পাজি ছেলেগুলোর উত্পাতে। নতুন কলিংবেল পেয়ে বাজিয়ে দিয়েই ছুটে পালায়। দরজা খুলে দেখা যায় কেউ নেই, ভোঁ-ভাঁ। সারাদিন ধরে খালি টিং-টং, টিং-টং। রেগেমেগে কাল্টুদা কলিংবেলের প্লাগটা খুলে রাখল। কিন্তু তাহলে কাল্টুদা বাড়ি ফিরে তো টিং-টং বাজাতে পারবে না।

More

Advertisements

Aside

বেনারসে তিনদিন ─── বাঁদর, হট চেম্বার আর কৌতূহলী বুড়ো

গিছিলুম বেনারস।‌ ‌‌‌কেন গিছিলুম, কি কত্তে গিছিলুম বলছি।‌ ‌‌‌
আসলে , দুবছর বেনারস হিন্দু ইউনিভার্সিটিতে পড়ার পর হঠাৎ বোধি লাভ করার মতো মনে হোলো, আরেহ্ বেনারসে তো কিছুই দেখা হলো না! এমনি মন্দির-ফন্দির অনেক আছে।‌ ‌‌‌ ওসবে আমার ততো উৎসাহ নেই।‌ ‌‌‌‌ যেটা দেখতে চাই, সেটা হলো সূর্যোদয়।‌ ‌‌‌ গঙ্গার ওপর।‌ ‌‌‌
More

Image