কাল্টুদার কলিংবেল

কাল্টুদা নতুন কলিংবেল লাগিয়েছে।

যে সময়ের কথা বলছি, সে সময় সবার বাড়িতে কলিংবেল থাকত না। বড়লোকেরা শখ করে লাগাতো। কাল্টুদাও শখে একটা জোগাড় করেছে। সন্ধের সময় বাড়ি ফিরে যেন দরজা ধাক্কাতে না হয়। বেশ টিং-টং করে বাজবে।

মুশকিলটা হলো পাড়ার পাজি ছেলেগুলোর উত্পাতে। নতুন কলিংবেল পেয়ে বাজিয়ে দিয়েই ছুটে পালায়। দরজা খুলে দেখা যায় কেউ নেই, ভোঁ-ভাঁ। সারাদিন ধরে খালি টিং-টং, টিং-টং। রেগেমেগে কাল্টুদা কলিংবেলের প্লাগটা খুলে রাখল। কিন্তু তাহলে কাল্টুদা বাড়ি ফিরে তো টিং-টং বাজাতে পারবে না।

তো, ব্যবস্থাটা হলো এইরকম — সারাদিন কলিংবেলের প্লাগ খোলাই থাকে। কাল্টুদা সন্ধেবেলা বাড়ি আসে। দরজার বাইরে থেকে হাঁকে, “দিদি, অ্যাই দিদি !”
— (ভেতর থেকে দিদি) “কে ?”
— “আমি কাল্টু। প্লাগটা দে”
— “ও হ্যাঁ। দাঁড়া”
দিদি কলিংবেলের প্লাগ লাগায়। এবার কাল্টুদা কলিংবেল বাজায়।
টিং-টং!
— ( দিদি কলিংবেলের আওয়াজ শুনে) “কে ?”
— “আমি কাল্টু, দরজাটা খোল।”
— “দাঁড়া খুলছি”

এই হলো কাল্টুদার কলিংবেল বৃত্তান্ত !

Kaltuda’s Calling-Bell

Kaltuda brought a new calling-bell.
In those days, not everybody put a calling-bell outside their houses. Only the rich people used to have it. Kaltuda, somehow managed one to put on the front door. He was too delighted to have a bell. Everyday, coming home from outside, calling out the other members of his family for opening the door, did not seem right to him.
The problem started when the naughty boys of his neighborhood started making fun with the bell. Often, they would ring the bell and just flee away. Kaltuda’s family got irritated out of this nuisance. Whole day, the bell— ringing now and then — ting-tong, ting-tong —- and if you open the door, there is no one! Kaltuda disconnected the plug of the power cable of the bell, to get rid of the disturbance. But, this made the whole bell thing idea of him  useless. He could  not ring it himself when it’s need.
So, Kaltuda’s family planned in a new way. Through out the whole day, the bell is kept unplugged. Kaltuda comes home in the evening.
From outside he calls, “Hey sis!”
— ( His sister from inside) “Who is it?”
— “Its me! Your brother! Plug the bell”
— “Oh yes! wait a minute”
His sister now connects the power cable of the bell. Now Kaltuda rings the bell.
Ting-Tong!
— ( His sister hearing the ringing bell) “Who is there?”
— “It’s me! your brother. Open the door.”
— “Ya ya, wait. Opening”
This is how Kaltuda’s family used a calling-bell successfully.
Advertisements

Aside

2 Comments (+add yours?)

  1. afsarnizam
    Jun 29, 2013 @ 05:02:11

    মজা

    Reply

  2. Koyel
    May 19, 2014 @ 15:24:49

    he he he…
    it funny too…:-D

    Reply

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: